প্রবাসী নিউজমধ্যপ্রাচ্যসৌদি আরব নিউজ

“সৌদি আরবে যাঁরা কাজে ফি’র’তে চান তাঁদের জন্য কিছু তথ্য দেয়া হলো: বিস্তারিত পড়ুন

 

– বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. এ. কে আব্দুল মোমেন ফোন আলাপকালে সৌদি আরবের পররাষ্টমন্ত্রী
পিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদের [Prince Faisal Bin Farhan Al- Saud] অনুরোধ করেন সৌদি আরব থেকে যে সকল প্রবাসী ভাইরা ছুটিতে এসে করণা ভাইরাসের কারণে দেশে আটকা পড়ে রয়েছেন তাদেরকে নেওয়ার জন্য সৌদি আরব ফ্লাইট সিডিউল দিয়েছে সে ফ্লাইট গুলোতে সকল প্রবাসী সৌদি আরবে যাওয়া সম্ভব নয়। সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কে অনুরোধ করা হয়েছে প্রয়োজনে ফ্লাইট সংখ্যা বাড়ানোর জন্য।

– বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদি আরব পররাষ্ট্রমন্ত্রী কে অনুরোধ করে বলেন যে দাম্মাম রুটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট চলাচল করার জন্য অনুমুতি দেওয়ার জন্য।
বর্তমানে সৌদি আরব থেকে যে ফ্লাইট গুলো চলাচল করছে সেগুলো হলো রিয়াদ, যোদ্দা, ও মদিনা।
এ মুহূর্তে যদি দাম্মাম রুটে ফ্লাইট পরিচালনা হয় তাহলে বাংলাদেশী প্রবাসীদের জন্য আরও একটু সুবিধা হবে।

বর্তমানে সৌদি আরবে যাত্রী বহন করার জন্য সৌদি এয়ারলাইন্স এবং বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এর দুটি বিমান এয়ারলাইন্স ইতিমধ্যে অনুমতি পেয়েছেন।)

এর আগে করোনা “Covid-19” ভাইরাস এর পরিস্থিতির জন্য বাংলাদেশে আটকে পড়া হাজার হাজার প্রবাসী সৌদি আরবে যাওয়া নিশ্চিত করতে সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাস ইকামা অথবা ভিসা, বাংলাদেশের নাগরিকদের যার যেটা প্রয়োজন সেই অনুযায়ী মেয়াদ আরে ০৩ মাসের জন্য বাড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয় বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়।

এবং সকল প্রবাসী ভাইরা যেন নির্ভয় সৌদি আরবে যেতে পারেন সে জন্য বাংলাদেশ ফাস্ট মন্ত্রালায়াম থেকে সকল প্রবাসীদের তিন মাস পুনরায় ভিসা এবং ইকামার এর মেয়াদ বাড়ানোর জন্য সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ন এর কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশের যত শ্রমিক রয়েছেন সৌদি ফেরত যেগুলো করণা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশে আটকা পড়ে রয়েছে তাদের এইসব আমার মেয়াদ চলতি মাসের আরবি সফর মাসে শেষ দিকে সবার মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে।
তবে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে যে এ ব্যাপারে সবাইকে নির্ভয় থাকার জন্য আটকা পড়া সকল সৌদি প্রবাসী সৌদি আরবে যেন বৈধ থাকেন, সে ব্যাপারেও সৌদি সরকারের সাথে কথাবার্তা চালিয়ে যাচ্ছেন।

যে সকল প্রবাসী ভাইরা সৌদি দূতাবাস থেকে এবং সৌদি এয়ারলাইন্স বাংলাদেশ বিমান টিকেট নিতে ইচ্ছুক সকল প্রবাসী ভাইদেরকে অনুরোধ করা হয়েছে কোনো ভাবেই বিশৃঙ্খলা না করে নিজেদের মাঝে নিয়ন্ত্রণ বজায় রেখে ভিসা আবেদন জমা দেওয়া এবং টিকেট ক্রয় করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য,, ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য দূতাবাসে কেউ গিয়ে বিড় করবেন না এটি দূতাবাসে বানানো হবে না। দূতাবাস যেই এজেন্সিগুলোকে অনুমতি দিয়েছে তাদের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।
এবং সবাইকে বলা হচ্ছে যাত্রীদের টিকেট নবায়ন করার জন্য আগের পুরাতন টিকেট সৌদি আরবের অনুমোদিত সকল কাগজপত্র এবং পাসপোর্ট নিজেদের সঙ্গে রাখতে হবে।

এবং টিকিট পাওয়ার পর অবশ্যই আপনাকে সৌদি আরব যাওয়ার জন্য কয়েকটি শর্ত মানতে হবে এবং বাধ্যতামূলক ভাবে করোনা আক্রান্ত নন এমন সার্টিফিকেট আপনার কাছে অবশ্যই থাকতে হবে।

এবং একই সাথে কওনা পরীক্ষার নমুনা জমা দেওয়া ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই আপনাকে সৌদি আরবে প্রবেশ করতে হবে।

৪৮ ঘন্টা গণনা শুরু হবে তখনই যখনই আপনার থেকে নমুনা সংগ্রহ করবে তখন থেকেই আপনার ৪৮ ঘন্টা গণনা শুরু হবে। এবং সকল যাত্রীদের করোনা নন নেগেটিভ টেস্ট ফলাফলের ৬টি কপি নিজেদের সঙ্গে অবশ্যই রাখতে হবে। অবশ্যই আপনাকে বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত যে রাজধানীর মহাখালী ডিএনসিসি হসপিটালে [মহাখালী বাসস্ট্যান্ডের কাছে] গিয়ে আপনার করোনা পরীক্ষা করাতে হবে অন্য কোন হাসপাতাল থেকে পরীক্ষা করালে সেটি গ্রহণযোগ্য হবে না।

সৌদি গামি সকল যাত্রীদেরকে অবশ্যই সৌদি আরবের সরকারের যে পদক্ষেপ গুলো দেওয়া হয়েছে সেগুলো মেনে কিভাবে প্রবেশ করতে হবে এবং সকল সৌদিগামী যাত্রীদেরকে (Absher) “আবশার’ ওয়েবসাইট থেকে ভিশার বৌদি তা যাচাই-বাছাই করে নিতে হবে।

বিমানে বোর্ডিংয়ের আগে আগে অবশ্যই যাত্রীদেরকে শরীর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় দেয়া শর্ত অনুযায়ী Disclaimer Form সম্পূর্ণভাবে পূরণ এবং নিজেদের স্বাক্ষর দিতে হবে সেই সাথে সবাইকে বিমানের ফ্লাইট সারারাত ৬ঘণ্টা আগে নিজেদের স্মার্টফোনসহ বিমানবন্দর গুলি তে উপস্থিত থাকতে হবে।

বিমানের প্রকাশের পূর্বে যে ফরমটি পূরণ করেছেন সেটি বিমান অফিসের সঙ্গে সঙ্গে আপনাকে অবশ্যই জমা দিয়ে দিতে হবে যে নির্দেশনা গুলো দেওয়া হয়েছে সেগুলো যদি আপনি অমান্য করেন তাহলে সিভিল এভিয়েশন আইনে ১৬৩ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী আপনাকে অনেক বড় ধরনের জরিমানা সামনা সামনি হতে হবে তাই সকলকে অনুরোধ করা গেল এই তথ্যগুলো মেনে চলার জন্য।

– সৌদি গামি সকল যাত্রীদের অবশ্যই সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ডিসক্লেইমার ফরমে (Disclaimer Form) (অনুচ্ছেদ-২) উল্লেখিত ” “Tataman and Tawakkalna Apps’’ ” সবার মোবাইলের ডাউনলোড করে নিতে হবে।

– এবং সকলকে সৌদি আরবে পৌঁছানোর ৮ঘণ্টার মধ্যে “Tataman app-এর মাধ্যমে তাদের নিজেদের আবাসস্থলের অবস্থান জানিয়ে দিতে হবে। সবাইকে সৌদিতে পৌঁছানোর পর ৭ দিন নিজ নিজ বাসায় সেলফ কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে, এবং সেটি বাধ্যতামূলক।

এবং সবাইকে একটি জিনিস লক্ষ্য করতে হবে যে কোভিড়-১৯ এর যে উপসর্গ গুলি রয়েছে সেগুলি প্রতি সবাইকে নজর দিতে হবে এবং কোন প্রকার যদি উপসর্গ দেখা দেয় সাথে সাথে 937 এ নাম্বারে কল দিতে হবে। Tataman App এ সকল যাত্রীদেরকে প্রতিদিনের স্বাস্থ্য মূল্যায়নের ও করতে হবে এবং সেটি ও বাধ্যতামূলক।


নিউজটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন,, ধন্যবাদ।  

নিউজ প্রবাস বাংলা

প্রবাসীদের সকল নিউজ সবার আগে পেতে যোগদিন ফেসবুকে www.facebook.com/probasnews.co

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button