অপরাধদেশি খবরবাংলাদেশ নিউজ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভালোবাসার প্রমাণ দিতে প্রেমিকের আনা বিষে প্রেমিকার আত্মহত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়

ভালোবাসার প্রমান দিতে গিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় প্রেমিকেরা আনা বিষ খেয়ে রুনা আক্তার (১৮) নামে এক তরুণী আত্মহত্যা করেছেন।

এই ঘটনায় অভিযুক্ত প্রেমিক সৈয়দ মনির উদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে। অকালে চলে যাওয়া নিহত রুনা আক্তার ছিলেন চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থী

তরুণীকে তুলে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধ’র্ষ’ণ, গ্রেপ্তার ৪

গত বুধবার ১৭ ই নভেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া এই ঘটনা ঘটে। নিহত রুনা আক্তার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপজেলার ধরখার ইউনিয়ন রানীখার গ্রামের আবু কাউসার সাহেবের মেয়ে। এবং অভিযুক্ত গ্রেফতার মনির একই এলাকার সৈয়দ রোকন উদ্দিন এর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে এবং পুলিশের মাধ্যমে জানা যায় নিহত রুনা আক্তারের সাথে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল মনির উদ্দিনের। পারিবারিক ভাবে বিয়ে হলেও কয়েক মাস আগেই তাদের বিচ্ছেদ হয়। বিচ্ছেদের কিছুদিন পরে তারা একে অপরের আবার পুনরায় প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন।

Pori Moni News – Parimani kept the secret

তবে জানাজায় কিছু দিন দরে তাদের মধ্যে মনো মালিন্য চলতেছিল। বুধবার সকালে রুনা যখন প্রাইভেট পড়তে ঘর থেকে বের হন রাস্তায় মনিরের সাথে দেখা হয় এবং দুজনের মধ্যে বাকবিতর্ক শুরু হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রুনা মন থেকে কটোটা ভালোবাসে মনির কে মনির সেটার প্রমান দেখতেছিলেন তখন বিষ আনতে বলেন মনিরকে রুনা।

পক্ষান্তরে রুনার কথা শুনি মনির বিষ আনতে ছুটে যায় পাশের একটা দোকানে, সেখানে থাকা চালের পোকা তাড়ানোর বিষ নিয়ে আসলেন মনির, এবং রুনাকে তা দেন খেতে, সাথে সাথে রুনা বিষের বোতলের মুখ খুলে তা খেয়ে পেলেন।

সেবিকাদের অবহেলার কারণে ১০ মাসের শিশুকে রেখে বিদায় নিয়েছেন মা!

খাওয়ার পরেই রুনা অসুস্থ হয়ে পড়েন পক্ষান্তরে মনির রুনাকে চিকিৎসার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। মেয়ের অসুস্থার খবর শুনে হাসপাতালে ছুটে যায় রুনার পরিবার, এবং সেখানে মনিরকে হাসপাতালে আটক রেখে পুলিশকে খবর দে রুনার বাবা।

পরবর্তীতে বিকেল বেলায় রুনার শারীরিক অবস্থা উন্নত হলে ভালো চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়ার পথেই মারা যান রুনা আক্তার।

বিষাক্ত আংটি ব্যবহার করে বাদশাহকে হত্যা করতে চেয়েছিলেন || Saudi Prince

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মিজানুর রহমান রুনা ও মনিরের এই বিষয় নিয়ে তিনি বলেন, নিহত রুনা আক্তার এর বাবা আবু কাওসার বাদী হয়ে অভিযুক্ত মনিরের বিরুদ্ধে থানায় মামালা দায়েল করেন। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে মনিরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button