অপরাধবাংলাদেশ নিউজ

সেবিকাদের অবহেলার কারণে ১০ মাসের শিশুকে রেখে বিদায় নিয়েছেন মা!

সেবিকাদের অবহেলার কারণে ১০ মাসের শিশুকে রেখে বিদায় নিয়েছেন মা!

করোনাভাইরাস এর মধ্যে বাংলাদেশের ঘটে গেলো এক হৃদয় বিদারক ঘটনা যে ঘটনাটি দেখার জন্য কোন মানুষই প্রস্তুত থাকে না।

সেবিকাদের অবহেলার কারণে ১০ মাসের শিশুকে রেখে বিদায় নিয়েছেন মা!

আজ শনিবার ৩ জুলাই ২০২১ বিকেল তিনটার সময় কমলগঞ্জ উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এমন এক হৃদয়বিদারক ঘটনার সাক্ষী হয়েছে সেখানকার হাসপাতাল থাকা রোগী, ডাক্তার এবং সাধারন মানুষ গন।

১০ মাসের ছোট্ট শিশু তানিশাকে রেখে দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছেন তার মা, শিশুটির মা চিরদিনের জন্য ঘুমিয়ে গিয়েছেন এটি হয়তো ছোট্ট শিশুটি এখন পর্যন্ত বুঝতে পারেনি (শিশুটির নাম তানিশা)।

মূলত ওই হসপিটালিটি কর্মরত সেবিকাদের অবহেলার কারণে তানিসার মা দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছেন। সাংবাদিকদের এক তথ্যে জানা গেছে সেখানকার ডাক্তার এবং নাসরা তানিশার মায়ের যত্নের অবহেলা করেছিল এবং জন্য তানিশার মা দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছেন।

সাংবাদিকরা সেখানকার কয়েকজন রোগীর সাথে কথা বলার পর জানতে পারেন যে তানিশার মার ওরকম টাকা পয়সা ছিল না যার কারণে ডাক্তাররা তার চিকিৎসক অবহেলা করেন।

তারা বলেন অনেক সময় ডাক্তাররা রুমের ভীতর ঢুকলেও রুমে থাকা অন্য রোগীদের চিকিৎসা এবং দেখাশোনা করে চলে যেতেন মৃ”ত তানিশার মায়ের যত্ন সেভাবে নিতো না

মৃ”ত মায়ের পাশে বসে চিৎকার এবং ছটফট করতে থাকে তানিশা এমন দৃশ্য দেখে সেখানকার কোন মানুষই চোখের পানি না ফেলে থাকতে পারে নাই এমন দৃশ্য কখনো মেনে নিতে পারে এবং না এমন দৃশ্য কেউ মেনে নিতে পারবে বলেও মনে হয় না।

তানিশা চিৎকারে এবং আহাজারিতে হাসপাতালের সর্বএ ভাবি হয়ে গিয়েছিল।

আমরা সবাই দোয়া করি আল্লাহ যেন শিশুটিকে ভালো রাখেন এবং সমস্ত বিপদ আপদ থেকে হেফাজত করেন এবং পরিশেষে একটি কথা বলতে চাই ভালো থাকুক প্রতিটি শিশুর মা সুস্থ থাকুক প্রতিটি শিশু এবং প্রতিটি শিশুর মা। সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন সর্বদা মাক্স পরে চলাফেরা করুন নিজে ভালো থাকুন অন্যকে ভাল থাকতে সচেতন করুন।

 

দেখুন যে ব্যবসা করে পরীমনি 

মদ না পেয়ে পরীমনির মিথ্যা নাটক – Pori Moni About

অভিনয় ছাড়ছেন সাকিব খান – Sakib Khan

👉 Taslima Akter 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button