ইসলামবাংলাদেশ নিউজ

শহীদদের প্রতি ফোটা রক্তের বদলা নেওয়া হবে : আমীরে হেফাজত

গত কাল ২৬ মার্চ বাংলাদেশে নরেন্দ্র মোদির আগমনের প্রতিবাদে তৌহিদি জনতার বিক্ষোভে ক্ষমতাসীন দলের কর্মী ও পুলিশের হামলায় হেফাজতের নেতাকর্মী নিহত ও আহত হওয়ার প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলামের ডাকে আজ শনিবার সারাদেশে শান্তিপূর্ণ ভাবে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং আগামীকাল ২৮ মার্চ রোববার “সকাল সন্ধ্যা” সর্বাত্মক শান্তিপূর্ণ ও সুশৃঙ্খলভাবে হরতাল কর্মসূচী পালন করতে দেশবাসীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও শিক্ষা পরিচালক আমীরে হেফাজত, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী.

আজ ২৭ মার্চ শনিবার আমি হেফাজত সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে বলেন, গতকাল ভারতের কসাই মোদির আগমনের প্রতিবাদে ঢাকা বায়তুল মোকাররম, বি-বাড়িয়া, যাত্রাবাড়ী, হাটহাজারীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলনরত তৌহিদী জনতার উপর অমানুষিক ভাবে গুলি বর্ষণ ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করেছেন পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের নেতারা, যাতে ৬ জন নিহত হয়েছেন এবং প্রায় ৪০০ জন প্রতিবাদী তৌহিদী জনতাকে রক্তাক্ত করে দেওয়া হয়েছে.

হেফাজতের আমীর বলেন এই শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে এভাবে পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা গুলিবর্ষণের ঘটনাটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা যা কখনোই বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ মেনে নিতে পারে না.

হেফাজতের আমীর আরো বলেন কাদের নির্দেশে এ সকল ধর্মপ্রাণ মুসলমান ও ছাত্রদের উপর পুলিশের হামলা করা হয়েছে এবং এভাবে সকল ছাত্রদেরকে শহীদ করা হয়েছে এর জবাব অবশ্যই প্রশাসনকে দিতে হবে এবং অভিযুক্ত যে সকল পুলিশ রয়েছে যারা এই ন্যাক্কারজনক কাজ করেছে তাদেরকে অবশ্যই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে.

আমীরে হেফাজত আরো বলেন এই আন্দোলনটি দেশ কিংবা সরকারের বিরুদ্ধে ছিল না,
আন্দোলনটি করা হয়েছে মুসলমানদের রক্তখেকো এবং মুসলমানদের প্রিয় বাবরি মসজিদ ধ্বংসকারী মোদি বাংলাদেশে আগমনের প্রতিবাদে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা এই আন্দোলনটি করেন.

এ শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের তৌহীদি জনতার উপর পুলিশের অমানবিক এবং বর্বরোচিত হামলা কখনোই মেনে নেওয়া যায় না আমি এই হামলার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি.

আল্লামা বাবুনগরী আরো বলেন চট্টগ্রাম হাটহাজারী, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় মোদির আগমনের প্রতিবাদে তৌহিদী জনতার শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ সমাবেশ চলছিল,
বিভিন্ন জায়গাতে তৌহিদী জনতা দের উপর হামলা খবর পাওয়া গেছে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে আমার ক কলিজার টুকরা ৪ ভাইকে শহীদ করেছেন পুলিশ.
এসব শহীদ ভাইদের গা থেকে ঝরা রক্তের এক বিন্দু বৃথা যেতে দেওয়া হবে না পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়া তৌহিদী জনতার রক্তের বদলা ইনশাল্লাহ নেওয়া হবে.

আমীরে হেফাজত বাবুনগরী আরো বলেন মোদির আগমনের কারণে বাংলাদেশ এত রক্ত ঝরেছে অতি বিলম্বে মোদিকে বাংলাদেশে ছাড়তে হবে ৯০% মুসলিম ও অধ্যুষিত বাংলাদেশের মুসলমানদের মোদি কোন রকমেই থাকতে পারে না.

আমীরে হেফাজত বাবুনগরী নিহতদের উদ্দেশ্য বলেন, এই মর্মান্তিক ঘটনা আমরা কেয়ো পস্তুত ছিলাম না, এ ঘটনায় যারা শহীদ হয়েছেন তাদের পরিবার প্রতি শোক সম্তপ্ত গভীর শোক এবং সমবেদনা জানাচ্ছি সবাইকে দূর্যোধারন করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে.

যারা শহীদ হয়েছেন আমি তাদে


র আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং আল্লাহ তায়ালার নিকট দোয়া করতেছি আল্লাহ তা’আলা যেন তাদেরকে জান্নাতের উচ্চ মকাম দান করেন এবং পুলিশ প্রশাসনের গুলিতে যে সকল ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ও ছাএরা আহত হয়েছেন তাদের সুচিকিৎসা প্রধান করতে সরকার এবং সংশ্লিষ্টদের প্রতি বিনীত অনুরোধ করছি.

আমীরে হেফাজত হযরত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী সর্বশেষ বলেন মোদি ইস্যুতে যদি বাংলাদেশে আরেকটি তৌহিদী জনতার শরীর থেকে রক্ত ঝরানো হয়, সে সথে ওলামায়ে কেরাম হামলা-মামলা ও হয়রানি করা হয় তাহলে এর জবাবে পুরো দেশে আন্দোলনের দাবানল জ্বলে উঠবে প্রয়োজন হলে দেশের শীর্ষ ওলামায়ে কেরামের সাথে বৈঠক করে হেফাজতে ইসলাম থেকে কঠিন ও কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে অন্যথায় হেফাজতকে এ ধরনের কর্মসূচি দিতে বাধ্য করবেন না।

আরো দেখুন 

সৌদি নাগরিকের সাথে পার্টনারশীপে ব্যাবসায় ৫ শর্ত

নিউজ প্রবাস বাংলা

প্রবাসীদের সকল নিউজ সবার আগে পেতে যোগদিন ফেসবুকে www.facebook.com/probasnews.co

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button